Text size A A A
Color C C C C
পাতা

সিটিজেন চার্টার

 

সিটিজেন চার্টার

নতুন পাসপোর্ট প্রাপ্তি ইস্যুকৃত পাসপোর্টের নবায়ন/সংযোজন সর্ম্পকিত সিটিজেন চার্টা :

 

আবেদনের প্রকৃতি

করণীয়

ফিসের শ্রেণী

MRP

সময়সীমা

মন্তব্য

নতুন/১২ বছর উর্ত্তীণ পাসপোর্টের এর জন্য

মেশিন রিডেবল পাসপোর্টের জন্য:

০২ (দুই) কপি আবেদনপত্র জমা দিতে হবে

জরুরী

৬০০০/-

প্রযোজ্যক্ষেত্রে পুলিশ প্রতিবেদন অনুকূলে প্রাপ্তির ৭ কর্ম দিবসের মধ্যে

 

সাধারণ

৩০০০/-

প্রযোজ্যক্ষেত্রে পুলিশ প্রতিবেদন অনুকূলে প্রাপ্তির ১৫ কর্ম দিবসের মধ্যে

 

দশ বছর উত্তীর্ণ এর ক্ষেত্রে পাসপোর্টের জন্য

এক প্রস্থ আবেদনপত্র জমা দিতে হবে

জরুরী

৬০০০/-

আবেদনপত্র জমা হওয়ারকর্ম দিবসের মধ্যে পাসপোর্ট পাওয়া যাবে

 

সাধারণ

৩০০০/-

আবেদনপত্র জমা হওয়ার ১৫ কর্ম দিবসের মধ্যে পাসপোর্ট পাওয়া যাবে

 

হারানো পাসপোর্টের বিপরীতে পাসপোর্ট প্রাপ্তির জন্য

জিডির কপিসহ ফিস জমা দিয়ে এক প্রস্থ আবেদন করতে হবে

জরুরী

৬০০০/-

আবেদনপত্র জমা হওয়ার ৭ কর্ম দিবসের মধ্যে পাসপোর্ট পাওয়া যাবে

পুরাতন রেকর্ড যাচাই করে সঠিক পাওয়া গেলে (Loss Circular জারী সাপেক্ষে) হারানো পাসপোর্টের বিপরীতে নতুন পাসপোর্ট ইস্যু করা হয়

সাধারণ

৩০০০/-

আবেদনপত্র জমা হওয়ার ১৫কর্ম দিবসের মধ্যে পাসপোর্ট পাওয়া যাবে

পাসপোর্টের পাতা নেই/ পাতা নষ্ট হবার কারণে পাসপোর্টের জন্য

ফিস জমা দিয়ে এক প্রস্থ আবেদন করতে হবে

জরুরী

৬০০০/-

আবেদনপত্র জমা হওয়ার ৭ কর্ম দিবসের মধ্যে পাসপোর্ট পাওয়া যাবে

 

সাধারণ

৩০০০/-

আবেদনপত্র জমা হওয়ার ১৫ কর্ম দিবসের মধ্যে পাসপোর্ট পাওয়া যাবে

 

সরকারী, আধা-সরকারী, স্বায়ত্ব শাসিত সংস্থা/ কর্পোরেশনের কর্মকর্তা/কর্মচারী এবং সরকারী কর্মকর্তা/কর্মচারীর স্বামী/ স্ত্রী ১৫ বছর বয়সের নীচের সন্তানদের পাসপোর্টের জন্য

মন্ত্রণালয়/বিভাগ/অধিদপ্তর/ দপ্তর প্রধানের নিকট হতে নির্ধারিত ফরমে এনওসি (NOC Form www.dip.gov.bd / অফিসে পাওয়া যাবে )সহ আবেদনপত্রের সাথে জমা দিতে হবে

জরুরী

৩০০০/-

আবেদনপত্র জমা হওয়ার ৭ কর্ম দিবসের মধ্যে পাসপোর্ট পাওয়া যাবে

NOC এর মূল কপি প্রাপ্তি সাপেক্ষে

অবসর প্রাপ্ত সরকারী কর্মকর্তা/ কর্মচারীদের ক্ষেত্রে

পেনশন অর্ডার/পেনশন বহির ফটোকপি (সত্যায়িত) সংযুক্ত করতে হবে

জরুরী

৩০০০/-

আবেদনপত্র জমা হওয়ার ৭ কর্ম দিবসের মধ্যে পাসপোর্ট পাওয়া যাবে

 

নবায়ন

(হাতেলেখা পাসপোর্ট)

নতুন পাসপোর্টের জন্য নির্ধারিত ফি এবং নবায়ন ফি উভয়ই প্রদান করতে হবে

জরুরী

৫০০/-

আবেদনপত্র জমা হওয়ার (তিন) দিনের মধ্যে পাসপোর্ট পাওয়া যাবে

কোন পাসপোর্টের নবায়ন/সংযোজনের ক্ষেত্রে জাল সনাক্ত হলে উক্ত পাসপোর্ট বাতিল করে নতুন পাসপোর্ট ইস্যু করা হয় (নতুন পাসপোর্ট নবায়ন ফিস উভয় গ্রহণ সাপেক্ষে)

সাধারণ

৩০০/-

আবেদনপত্র জমা হওয়ার(চার)  কর্মদিবসের মধ্যে পাসপোর্ট পাওয়া যাবে

সংযোজন

(হাতেলেখা)

(প্রমান পত্রসহ)

নতুন পাসপোর্টের জন্য নির্ধারিত ফি এবং নবায়ন ফি উভয়ই প্রদান করতে হবে

জরুরী

৫০০/-

আবেদনপত্র জমা হওয়ার (তিন) দিনের মধ্যে পাসপোর্ট পাওয়া যাবে

 

সাধারণ

৩০০/-

আবেদনপত্র জমা হওয়ার (চার)  কর্মদিবসের মধ্যে পাসপোর্ট পাওয়া যাবে

 

বিদ্যমান পাসপোর্টে

(হাতেলেখা)

সন্তানের নাম সংযোজনের আবেদন

) দুই কপি আবেদনপত্র জমা দিতে হবে

) আবেদনপত্রের সাথে বাবা/মায়ের ছবি সত্যায়িত করে সংযুক্ত করতে হবে

) প্রতিটি সন্তানের জন্য অতিরিক্ত দুই কপি করে ষ্ট্যাম্প সাইজের ছবি জমা দিতে হবে

জরুরী

৫০০/-

অনুকূল পুলিশ প্রতিবেদন প্রাপ্তি সাপেক্ষে আবেদনপত্র জমা হওয়ার (তিন) দিনের মধ্যে পাসপোর্ট পাওয়া যাবে

 

সাধারণ

৩০০/-

অনুকূল পুলিশ প্রতিবেদন প্রাপ্তি সাপেক্ষে আবেদনপত্র জমা হওয়ার ০৪ (চার)  কর্মদিবসের মধ্যে পাসপোর্ট পাওয়া যাবে

 

 

 

 

 

 

মেশিন রিডেবল পাসপোর্ট  এর পদ্ধতি:

  ১. প্রথমেই যে কোন পাসপোর্ট অফিস হতে বিনা মূল্যে আবেদনফরম সংগ্রহ করতে হবে অথবা www.dip.gov.bd এই ওয়েব সাইট হতে ফরম সংগ্রহ করা যাবে। ফরম পূরণ করার পূর্বে ফরমে লিখিত নির্দেশাবলী সঠিক ভাবে অনুসরন করতে হবে।

 ২.  আবেদনকারী ঘরে বসে অনলাইনে পাসপোর্ট এর জন্য আবেদন করতে পারবেন। (www.passport.gov.bd)

 ৩. দ্বিতীয় ধাপে আবেদনপত্র/ফরম পূরণ করার পর তা যথাযথ ব্যক্তি দ্বারা সত্যায়িত করতে হবে। (ফরমে উল্লেখিতনির্দেশ অনুসারে)

  ৪. জরুরী আবেদনের জন্য ৬০০০ টাকা এবং সাধারন আবেদনের জন্য ৩০০০ টাকা সোনালী ব্যাংক এর খুলনা কর্পোরেট শাখায় জমা দিয়ে স্লিপ ফরমের উপরের অংশে আঠা দিয়ে লাগাতে হবে।

 ৫. জাতীয় পরিচয় পত্র অথবা জন্ম নিবন্ধন সনদের ফটোকপি সত্যায়িত করে আবেদনপত্রের সাথে সংযুক্ত করতে হবে। প্রযোজ্যক্ষেত্রে যথাযথ কর্তৃপক্ষ কর্তৃক প্রদত্ত অনাপত্তি পত্র (এনওসি) সাথে দিতে হবে। (জাতীয় পরিচয় পত্র ১৩ থেকে ১৭ সংখ্যার এবং জন্মনিবন্ধন ১৫ থেকে ১৭ সংখ্যার হতে হবে)।

  ৬. অত্রাফিসে উপস্থিত হয়ে আবেদনপত্র দাখিল করতে হবে। সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা আবেদনপত্র যাচাই বাছাই করে নির্দিষ্ট সময়ে অফিসের প্রি-এনরোলমেন্ট  শাখায় পাঠাবেন। এনরোলমেন্ট সম্পন্ন হলে এনরোলমেন্ট স্লিপে আবেদনকারীকে প্রয়োজনীয় সকল তথ্য চেক করে কোন প্রকার ভুল থাকলে তা ছবি ও স্বাক্ষরের পূর্বে বায়ো-এনরোলমেন্ট অফিসারকে অবহিত করে ভুল সংশোধন করবেন, এর পর আবেদনকারীর ছবি, আঙ্গুলের ছাপ ও ডিজিটাল স্বাক্ষর সংগ্রহ করা হবে। আবেদনকারীর এ সমস্থ কাজ সম্পন্ন হওয়ার পর একটি  রশিদ প্রদান করা হবে। যাতে সম্ভাব্য বিতরন তারিখ উল্লেখ করা থাকবে।

 ৭. বিতরন রশিদে উল্লেখিত সময়ে আবেদনকারী নিজে অফিসে উপস্থিত হয়ে পাসপোর্ট সংগ্রহ করবেন। এছাড়া ও আবেদনকারী তার আবেদনের অবস্থা (প্রসেস) মোবাইলে এসএমএস এর মাধ্যমে জানতে পারেন এবং পাসপোর্টইস্যুর বিষয়নিশ্চিত হয়ে পাসপোর্ট সংগ্রহের জন্য আসতে পারেন। উল্লেখ্য বিতরন রশিদে কোথায় এবং কিভাবে এসএমএস পাঠাতে  হবে তা লিখা থাকে।